মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

এক নজরে ময়মনসিংহ বিভাগ

 

ময়মনসিংহ বিভাগ ও বিভাগীয় প্রশাসন সম্পর্কে অবহিতকরণ :
তারিখঃ ২০ আগস্ট, ২০১৭

 

 

বিভাগ ঘোষণা

 

  • বিভাগ ঘোষণা- 13.10.2015 (অষ্টম প্রশাসনিক বিভাগ)
  • প্রশাসনিক কার্যক্রম শুরু- 03.12.2015

 

ময়মনসিংহ নামকরণ

  • মোঘল আমলে মোমেনশাহ নামে একজন সাধকের নামে অঞ্চলটির নাম হয় “মোমেনশাহী” কালের বিবর্তনে যা ময়মনসিংহ নামে পরিচিতি লাভ করে
  • ষোড়শ শতাব্দীতে সৈয়দ নাসির উদ্দিন নসরত শাহ'র নামে নসরতশাহী নামক রাজ্য স্থাপন করা হয় যা থেকে ময়মনসিংহের অপর নাম “নাসিরাবাদ” এর উৎপত্তি
  • রাজপুতনার নাসিরাবাদ রেল স্টেশনের সাথে নাম বিভ্রাটের কারণে রেলওয়ে স্টেশনের নাম পরিবর্তন করে ময়মনসিংহ রাখা হয়। সেই থেকে নাসিরাবাদের পরিবর্তে ময়মনসিংহ ব্যবহৃত হয়ে আসছে।          

 

এক নজরে ময়মনসিংহ বিভাগ

  • ময়মনসিংহ জেলা প্রতিষ্ঠা - ১ মে ১৭৮৭
  • বৃহত্তর ময়মনসিংহ জেলা-ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল,   জামালপুর, কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোণা ও শেরপুর
  • ময়মনসিংহ জেলা থেকে ১৯৬৯ সালে টাঙ্গাইল জেলা হিসেবে উন্নীত ১৯৮৪ খ্রিস্টাব্দে বৃহত্তর ময়মনসিংহ জেলার  জামালপুর, কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোণা ও শেরপুর  মহকুমা জেলায় উন্নীত

আয়তন জনসংখ্যা

         জেলার নাম

   আয়তন

    (বর্গ কিমি)

     জনসংখ্যা

(২০১১ আদমশুমারি)

  ময়মনসিংহ

 ৪,৩৬৩.৪৮

 ৫৩,১৩,১৬৩

  জামালপুর

 ২,০৩১

 ২৩,৮৪,৮১০

   নেত্রকোণা

 ২,৭৯৪

 ২২,০৭,০০০

   শেরপুর

 ১,৩৬৩.৭৬

 ১৫,৪২,৬১০

     মোট

 ১০,৫৫২.২৪

 ১,১৪,৪৭,৫৮৩

জেলা

উপজেলা

পৌরসভা

ইউনিয়ন

 গ্রাম

সংসদীয়    

  আসন

ময়মনসিংহ

     ১৩

   ১০

   ১৪৬

 ২৬৯২

   ১১

 জামালপুর

    ০৭

   ০৭

    ৬৭

 ১৩৬২

   ০৫

  নেত্রকোণা

     ১০

   ০৫

    ৮৬

 ২২৯৯

   ০৫

   শেরপুর

    ০৫

   ০৫

    ৫২

 ৮৯৩

   ০৩

    মোট

    ৩৫

   ২৭

   ৩৫১

 ৭২৪৬

   ২৪

               

 

ময়মনসিংহ বিভাগের উপজেলা

জেলা

              উপজেলার নাম

  ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহ সদর, ত্রিশাল, ভালুকা, ফুলবাড়িয়া, মুক্তাগাছা, গফরগাঁও, গৌরীপুর, ঈশ্বরগঞ্জ, নান্দাইল, তারাকান্দা, ফুলপুর, হালুয়াঘাট ও ধোবাউড়া

 জামালপুর

জামালপুর সদর, ইসলামপুর, দেওয়ানগঞ্জ, মাদারগঞ্জ, মেলান্দহ, সরিষাবাড়ী ও বকশীগঞ্জ

  নেত্রকোণা

নেত্রকোণা সদর, পূর্বধলা, দুর্গাপুর,বারহাট্টা, আটপাড়া, মদন, কেন্দুয়া, মোহনগঞ্জ,কলমাকান্দা ও খালিয়াজুরী

   শেরপুর

শেরপুর সদর, নকলা, ঝিনাইগাতী, নালিতাবাড়ী ও শ্রীবরদী

 

ময়মনসিংহ বিভাগের ঐতিহ্য

  • ময়মনসিংহ শহরের পাশ দিয়েই বয়ে গেছে ব্রহ্মপুত্র নদ। এ নদের সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়েই শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদীন বহু ছবি এঁকেছিলেন- মনপুরা-৭০, ম্যাডোনা-৪৩, নৌকা, সংগ্রাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং নবান্ন
  • জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের স্মৃতি জড়িয়ে আছে ত্রিশাল উপজেলার  দরিরামপুর ও কাজীর সীমলার সাথে
  • সংস্কৃতি, ইতিহাস, ঐতিহ্যে সমৃদ্ধ আর বৈচিত্র্যপূর্ণ জনগোষ্ঠির এক জনপদ ময়মনসিংহ বিভাগ

 

ময়মনসিংহ বিভাগের ঐতিহ্য

  • ময়মনসিংহ শহরের পাশ দিয়েই বয়ে গেছে ব্রহ্মপুত্র নদ। এ নদের সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়েই শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদীন বহু ছবি এঁকেছিলেন- মনপুরা-৭০, ম্যাডোনা-৪৩, নৌকা, সংগ্রাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং নবান্ন
  • জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের স্মৃতি জড়িয়ে আছে ত্রিশাল উপজেলার  দরিরামপুর ও কাজীর সীমলার সাথে
  • সংস্কৃতি, ইতিহাস, ঐতিহ্যে সমৃদ্ধ আর বৈচিত্র্যপূর্ণ জনগোষ্ঠির এক জনপদ ময়মনসিংহ বিভাগ

 

 

ময়মনসিংহ বিভাগের ঐতিহ্য

  • মুক্তাগাছার মন্ডা ও জমিদার বাড়ি
  • ময়মনসিংহের মালাইকারী
  • মোরগ খাসী (ময়মনসিংহ)  
  • ফুলবাড়িয়ার হলুদ, বিরুই চাল ও আনারস, ভালুকার কাঁঠাল
  • ছানার পায়েস (শেরপুর)
  • বালিশ মিষ্টি (নেত্রকোণা)
  • মহুয়া ও মলুয়ার কাহিনী (ময়মনসিংহ)
  • নদের চাঁদের  লোক-কাহিনী (নেত্রকোণা)

 

পুরাকীর্তি

  জেলা

                            পুরাকীর্তি

 

   নেত্রকোণা

রোয়াইলবাড়ি দূর্গ, হযরত শাহ্ সুলতান কমর উদ্দিন রুমি(র) মাজার, শাহ্ সুখূল আম্বিয়া মাজারের পাশে মোগল যুগের এক গম্বুজ বিশিষ্ট মসজিদ, পুকুরিয়ার ধ্বংসপ্রাপ্ত দূর্গ, নাটেরকোণার ধ্বংসপ্রাপ্ত ইমারতের স্মৃতিচিহৃ, দূর্গাপুর মাসকান্দা গ্রামের সুলতানি যুগের এক গম্বুজ বিশিষ্ট মসজি, সাত পুকুর ও হাসানকুলী খাঁর সমাধি

 শেরপুর

শের আলী গাজির মাজার, জরিপ শাহের মাজার, শাহ কামালের মাজার, বার দুয়ারী মসজিদ, ঘাগরা লস্কর খান মসজিদ, মায় সাহেবা জামে মসজিদ, নয়ানিবাজার নাথ মন্দির, মঠ লস্কর বাড়ি মসজিদ, কসবা মোঘল মসজিদ

 

দর্শনীয় স্থানসমূহ
জামালপুর

হজরত শাহ জামালের (রহ.) মাজার, হজরত শাহ কামালের (রহ.) মাজার, পাঁচ গম্বুজবিশিষ্ট রসপাল জামে মসজিদ, নরপাড়া দুর্গ, গান্ধী আশ্রম, দয়াময়ী মন্দির, দেওয়ানগঞ্জের সুগার মিল, লাউচাপড়া পিকনিক স্পট, যমুনা সার কারখানা, লাউচাপড়া পর্যটন কেন্দ্র

 

কমিশনারের কার্যালয়ের পটভূমি

 

মাঠ প্রশাসন বা স্থানীয় প্রশাসনের গোড়ায় আছে বিভাগীয় প্রশাসন। সমগ্র বাংলাদেশকে বর্তমানে ৮টি প্রশাসনিক বিভাগে ভাগ করা হয়েছে। বিভাগগুলো হচ্ছে- ঢাকা, চট্রগাম, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, সিলেট, রংপুর ও  ময়মনসিংহ। ২০১৫ সালে ময়মনসিংহ বিভাগ প্রতিষ্ঠিত হয়। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানীর শাসনামলে বাংলার তৎকালীন গভর্ণর জেনারেল লর্ড উইলিয়াম বেন্টিং ১৮২৯ সালে  Commissioner’s Act এর মাধ্যমে রাজস্ব ব্যবস্থা নিশ্চিতকরণ ও শাসন ব্যবস্থাকে দৃঢীকরণের উদ্দ্যেশে বাংলার কয়েকটি জেলা নিয়ে একটি বিভাগের সৃষ্টি করেন। সে সময় বিভাগীয় প্রধানের পদবি হয় বিভাগীয় কমিশনার (Divisional Commissioner)। ৪ টি জেলা নিয়ে গঠিত  ময়মনসিংহ বাংলাদেশের অন্যতম বিভাগ। এ ৪ টি জেলার প্রশাসনিক কেন্দ্র  ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়। বিভাগীয় কমিশনারের দিকনির্দেশনা ও তত্ত্বাবধানে জেলা প্রশাসকগণ প্রশাসনিক কর্মকান্ড পরিচালনা করেন। বিভাগীয় কমিশনার বিভাগীয় আইন শৃংখলা কমিটির সভাপতি, বিভাগীয় উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভাপতি, বিভাগের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা, চোরাচালান প্রতিরোধ সংক্রান্ত আঞ্চলিক টস্কফোর্সের সভাপতি, বিভাগীয় বাছাই কমিটির সভাপতি, বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি।

 

 

 

বিভাগীয় অফিসসমূহ

  • আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় (আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক)
  • ডিভিশনাল কন্ট্রোলার অব একাউন্টস্‌ (
  • শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর ( তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী)
  • প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর, বিভাগীয় কার্যালয় (উপ-পরিচালক)
  • উপ-ভূমি সংস্কার কমিশনারের কার্যালয় (উপ-ভূমি সংস্কার কমিশনার)
  • সহকারী হিসাব নিয়ন্ত্রক (রাজস্ব) এর কার্যালয় ((সহকারী হিসাব নিয়ন্ত্রক (রাজস্ব))
  • গ্রন্থাগার অধিদপ্তর, বিভাগীয় কার্যালয় (পরিচালক)
  • বিভাগীয় কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস (উপ-পরিচালক)
  • টিসিবি, আঞ্চলিক কার্যালয়
  • বিভাগীয় তথ্য অফিস
  • স্থাপত্য অধিদপ্তর
  • নগর উন্নয়ন অধিদপ্তর (উপ-পরিচালক)
  • দুদক, বিভাগীয় কার্যালয়  (পরিচালক)

 

বিভাগীয় কমিশনারের প্রধান প্রধান কার্যাবলী/দায়িত্বসমূহ 

রাষ্ট্রীয় গোপনীয় বিষয়াদি

  • মহামান্য রাষ্ট্রপতি এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা সংক্রান্ত কার্যাদি।
  • গোপনীয় তথ্য ও পুস্তকাদির নিরাপদ হেফাজত সম্পর্কিত প্রতিবেদন প্রেরণ।
  • KPI  এর নিরাপত্তা এর তদারকি।
  • বিভাগীয় সার্বিক অবস্থার পাক্ষিক গোপনীয় প্রতিবেদন সরকারের কাছে প্রেরণ।

 

বিভাগীয় কমিশনারের প্রধান প্রধান কার্যাবলী/দায়িত্বসমূহ :

বিভাগীয় কমিশনার বিভাগীয় প্রশাসনের মূল নিয়ন্ত্রক। কেন্দ্রীয় প্রশাসনের কার্যাবলী বিভাগীয় পর্যায়ের বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে বিভাগীয় কমিশনার  তত্ত্বাবধান করেন। তিনি জেলা প্রশাসকের কার্যক্রম মনিটর করার পাশাপাশি সরকার কর্তৃক অর্পিত সকল দায়িত্ব পালন করেন।

  • প্রশাসনিক কার্যক্রম তদারকিঃ বিভাগীয় পর্যায়ের বিভিন্ন বিভাগ ও দপ্তরের কার্যাবলী সমন্বয় এবং বিভাগাধীন জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সহকারী কমিশনার (ভূমি)সহ প্রশাসনে কর্মরত কর্মকর্তা এবং কর্মচারীদের কার্যক্রম তদারকি
  • উন্নয়ন সংক্রান্তঃ বিভাগের কল্যাণ ও উন্নয়নমূলক কাজের সমন্বয়। প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় ত্রাণ, পূনর্বাসন কাজ তদারক ও সমন্বয় সাধন

বদলি, পদায়ন সংক্রান্তঃ সহকারী কমিশনার, সহকারী কমিশনার (ভুমি), উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের বদলি এবং পদায়ন। তাছাড়া, ভুমি অফিসে কর্মরত ভুমি উপসহকারী ভূমি কর্মকর্তা, কানুনগো, সার্ভেয়ারদের বিভাগাধীন আন্তঃজেলা বদলি

  • রাজস্ব সংক্রান্তঃ বিভাগের ভূমি রাজস্ব আদায় সংক্রান্ত কার্যাবলী পরিচালনা ও নিয়ন্ত্রন এবং রাজস্ব বিষয়ে জেলা প্রশাসকদের আদেশের বিরুদ্ধে তিনি আপিল শুনানী
  • বিভাগীয় নির্বাচনী বোর্ড সংক্রান্তঃ বিভাগীয় নির্বাচনী বোর্ডের সভাপতি হিসেবে নিজ কার্যালয়, ডিআইজি’র কার্যালয়, পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়, বিভাগাধীন জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে তৃতীয়  এবং ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারী নিয়োগ প্রক্রিয়া পরিচালনা
  • মাসিক/অন্যান্য সভা সংক্রান্তঃ বিভাগীয় কমিশনারের সভাপতিত্বে জেলা প্রশাসকগণের সাথে মাসিক সমন্বয় সভা, বিভাগীয় পর্যায়ে টাস্কফোর্স সভা, বিভাগীয় আইন শৃঙ্খলা সভা, বিভাগীয় রাজস্ব সম্মেলন, বিভাগীয় উন্নয়ন সমন্বয় সভা, বিভাগীয় কোর কমিটির সভা এবং জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহীগণের সাথে ত্রৈমাসিক সভা
  • গোপনীয় অনুবেদন সংক্রান্তঃ অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার, পরিচালক, স্থানীয় সরকার এবং জেলা প্রশাসকগণের গোপনীয় অনুবেদন প্রদান। বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ে কর্মরত সহকারী/সিনিয়র কমিশনার এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও অতিরিক্ত  জেলা প্রশাসকগণের গোপনীয় অনুবেদন প্রতিস্বাক্ষর
  • অন্যান্য দায়িত্বাবলীঃ
  • প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার প্রকল্প সমূহের বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা এবং প্রতিবেদন প্রেরণ।
  • বিভিন্ন মন্ত্রণালয়/বিভাগ আয়োজিত মাসিক সমন্বয়/পর্যালোচনা সভায় যোগদান ।
  • বিভাগীয় পর্যায়ে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বিচারাধীন মামলার স্বাক্ষী হাজিরা ও প্রশাসনিক সহায়তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে গঠিত বিভাগীয় মনিটরিং কমিটিতে সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন।
  • জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস উদযাপনের ব্যাপারে সরকার কর্তৃক গৃহীত সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন
  • অডিট আপত্তি নিষ্পত্তির লক্ষ্যে ত্রিপক্ষীয় সভা অনুষ্ঠান
  • পাবলিক প্রকিউরম্যান্ট রেগুলেশন-২০১৩ অনুযায়ী বিভাগীয় দরপত্র মূল্যায়ন কমিটিতে বিভাগীয় কমিশনারের প্রতিনিধির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন
  • অভ্যন্তরীন খাদ্য শস্য সংগ্রহ সংক্রান্ত বিভগীয় কমিটিতে সভাপতির দায়িত্ব পালন
  • প্রাথমিক শিক্ষা পদক নীতিমালা অনুসারে বিভাগীয় বাছাই কমিটিতে সভাপতির দায়িত্ব পালন
  • জতীয় পরিবেশ পদক নীতিমালা অনুযায়ী বিভাগীয় পদক মূল্যায়ন কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন

 

বিভাগীয় কমিশনারের গৃহীত বিশেষ উদ্যোগসমূহ

  • জনবান্ধব উপজেলা প্রশাসন বিনির্মাণে ৩৮টি বিশেষ উদ্যোগ
  • জনবান্ধব ভূমি অফিস নির্মাণে ২৪টি বিশেষ উদ্যোগ
  • ভিক্ষুক পুনর্বাসন ও ভিক্ষুক মুক্তকরণের লক্ষ্যে বিভাগের সকল জেলা ও উপজেলায় “ভিক্ষুক পুনর্বাসন তহবিল” গঠন এবং সকল দপ্তরের কর্মকর্তা/কর্মচারীদের এক দিনের বেতনের সমপরিমাণ টাকা উক্ত তহবিলে জমার উদ্যোগ গ্রহণ
  • বাল্যবিবাহ মুক্তকরণের লক্ষ্যে বিভিন্ন উদ্যোগ
  • শত ভাগ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে টিফিন বক্স বিতরণ/মিড ডে মিল চালুকরণ

    ময়মনসিংহ বিভাগ ও বিভাগীয় প্রশাসন সম্পর্কে অবহিতকরণ :
    তারিখঃ ২০ আগস্ট, ২০১৭

     

     

    বিভাগ ঘোষণা

     

  • বিভাগ ঘোষণা- 13.10.2015 (অষ্টম প্রশাসনিক বিভাগ)
  • প্রশাসনিক কার্যক্রম শুরু- 03.12.2015
  •  

    ময়মনসিংহ নামকরণ

  • মোঘল আমলে মোমেনশাহ নামে একজন সাধকের নামে অঞ্চলটির নাম হয় “মোমেনশাহী” কালের বিবর্তনে যা ময়মনসিংহ নামে পরিচিতি লাভ করে
  • ষোড়শ শতাব্দীতে সৈয়দ নাসির উদ্দিন নসরত শাহ'র নামে নসরতশাহী নামক রাজ্য স্থাপন করা হয় যা থেকে ময়মনসিংহের অপর নাম “নাসিরাবাদ” এর উৎপত্তি
  • রাজপুতনার নাসিরাবাদ রেল স্টেশনের সাথে নাম বিভ্রাটের কারণে রেলওয়ে স্টেশনের নাম পরিবর্তন করে ময়মনসিংহ রাখা হয়। সেই থেকে নাসিরাবাদের পরিবর্তে ময়মনসিংহ ব্যবহৃত হয়ে আসছে।          
  •  

    এক নজরে ময়মনসিংহ বিভাগ

  • ময়মনসিংহ জেলা প্রতিষ্ঠা - ১ মে ১৭৮৭
  • বৃহত্তর ময়মনসিংহ জেলা-ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল,   জামালপুর, কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোণা ও শেরপুর
  • ময়মনসিংহ জেলা থেকে ১৯৬৯ সালে টাঙ্গাইল জেলা হিসেবে উন্নীত ১৯৮৪ খ্রিস্টাব্দে বৃহত্তর ময়মনসিংহ জেলার  জামালপুর, কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোণা ও শেরপুর  মহকুমা জেলায় উন্নীত
  • আয়তন জনসংখ্যা

             জেলার নাম

       আয়তন

        (বর্গ কিমি)

         জনসংখ্যা

    (২০১১ আদমশুমারি)

      ময়মনসিংহ

     ৪,৩৬৩.৪৮

     ৫৩,১৩,১৬৩

      জামালপুর

     ২,০৩১

     ২৩,৮৪,৮১০

       নেত্রকোণা

     ২,৭৯৪

     ২২,০৭,০০০

       শেরপুর

     ১,৩৬৩.৭৬

     ১৫,৪২,৬১০

         মোট

     ১০,৫৫২.২৪

     ১,১৪,৪৭,৫৮৩

    জেলা

    উপজেলা

    পৌরসভা

    ইউনিয়ন

     গ্রাম

    সংসদীয়    

      আসন

    ময়মনসিংহ

         ১৩

       ১০

       ১৪৬

     ২৬৯২

       ১১

     জামালপুর

        ০৭

       ০৭

        ৬৭

     ১৩৬২

       ০৫

      নেত্রকোণা

         ১০

       ০৫

        ৮৬

     ২২৯৯

       ০৫

       শেরপুর

        ০৫

       ০৫

        ৫২

     ৮৯৩

       ০৩

        মোট

        ৩৫

       ২৭

       ৩৫১

     ৭২৪৬

       ২৪

                   

     

    ময়মনসিংহ বিভাগের উপজেলা

    জেলা

                  উপজেলার নাম

      ময়মনসিংহ

    ময়মনসিংহ সদর, ত্রিশাল, ভালুকা, ফুলবাড়িয়া, মুক্তাগাছা, গফরগাঁও, গৌরীপুর, ঈশ্বরগঞ্জ, নান্দাইল, তারাকান্দা, ফুলপুর, হালুয়াঘাট ও ধোবাউড়া

     জামালপুর

    জামালপুর সদর, ইসলামপুর, দেওয়ানগঞ্জ, মাদারগঞ্জ, মেলান্দহ, সরিষাবাড়ী ও বকশীগঞ্জ

      নেত্রকোণা

    নেত্রকোণা সদর, পূর্বধলা, দুর্গাপুর,বারহাট্টা, আটপাড়া, মদন, কেন্দুয়া, মোহনগঞ্জ,কলমাকান্দা ও খালিয়াজুরী

       শেরপুর

    শেরপুর সদর, নকলা, ঝিনাইগাতী, নালিতাবাড়ী ও শ্রীবরদী

     

    ময়মনসিংহ বিভাগের ঐতিহ্য

  • ময়মনসিংহ শহরের পাশ দিয়েই বয়ে গেছে ব্রহ্মপুত্র নদ। এ নদের সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়েই শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদীন বহু ছবি এঁকেছিলেন- মনপুরা-৭০, ম্যাডোনা-৪৩, নৌকা, সংগ্রাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং নবান্ন
  • জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের স্মৃতি জড়িয়ে আছে ত্রিশাল উপজেলার  দরিরামপুর ও কাজীর সীমলার সাথে
  • সংস্কৃতি, ইতিহাস, ঐতিহ্যে সমৃদ্ধ আর বৈচিত্র্যপূর্ণ জনগোষ্ঠির এক জনপদ ময়মনসিংহ বিভাগ
  •  

    ময়মনসিংহ বিভাগের ঐতিহ্য

  • ময়মনসিংহ শহরের পাশ দিয়েই বয়ে গেছে ব্রহ্মপুত্র নদ। এ নদের সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়েই শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদীন বহু ছবি এঁকেছিলেন- মনপুরা-৭০, ম্যাডোনা-৪৩, নৌকা, সংগ্রাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং নবান্ন
  • জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের স্মৃতি জড়িয়ে আছে ত্রিশাল উপজেলার  দরিরামপুর ও কাজীর সীমলার সাথে
  • সংস্কৃতি, ইতিহাস, ঐতিহ্যে সমৃদ্ধ আর বৈচিত্র্যপূর্ণ জনগোষ্ঠির এক জনপদ ময়মনসিংহ বিভাগ
  •  

     

    ময়মনসিংহ বিভাগের ঐতিহ্য

  • মুক্তাগাছার মন্ডা ও জমিদার বাড়ি
  • ময়মনসিংহের মালাইকারী
  • মোরগ খাসী (ময়মনসিংহ)  
  • ফুলবাড়িয়ার হলুদ, বিরুই চাল ও আনারস, ভালুকার কাঁঠাল
  • ছানার পায়েস (শেরপুর)
  • বালিশ মিষ্টি (নেত্রকোণা)
  • মহুয়া ও মলুয়ার কাহিনী (ময়মনসিংহ)
  • নদের চাঁদের  লোক-কাহিনী (নেত্রকোণা)
  •  

    পুরাকীর্তি

      জেলা

                                পুরাকীর্তি

     

       নেত্রকোণা

    রোয়াইলবাড়ি দূর্গ, হযরত শাহ্ সুলতান কমর উদ্দিন রুমি(র) মাজার, শাহ্ সুখূল আম্বিয়া মাজারের পাশে মোগল যুগের এক গম্বুজ বিশিষ্ট মসজিদ, পুকুরিয়ার ধ্বংসপ্রাপ্ত দূর্গ, নাটেরকোণার ধ্বংসপ্রাপ্ত ইমারতের স্মৃতিচিহৃ, দূর্গাপুর মাসকান্দা গ্রামের সুলতানি যুগের এক গম্বুজ বিশিষ্ট মসজি, সাত পুকুর ও হাসানকুলী খাঁর সমাধি

     শেরপুর

    শের আলী গাজির মাজার, জরিপ শাহের মাজার, শাহ কামালের মাজার, বার দুয়ারী মসজিদ, ঘাগরা লস্কর খান মসজিদ, মায় সাহেবা জামে মসজিদ, নয়ানিবাজার নাথ মন্দির, মঠ লস্কর বাড়ি মসজিদ, কসবা মোঘল মসজিদ

     

    দর্শনীয় স্থানসমূহ
    জামালপুর

    হজরত শাহ জামালের (রহ.) মাজার, হজরত শাহ কামালের (রহ.) মাজার, পাঁচ গম্বুজবিশিষ্ট রসপাল জামে মসজিদ, নরপাড়া দুর্গ, গান্ধী আশ্রম, দয়াময়ী মন্দির, দেওয়ানগঞ্জের সুগার মিল, লাউচাপড়া পিকনিক স্পট, যমুনা সার কারখানা, লাউচাপড়া পর্যটন কেন্দ্র

     

    কমিশনারের কার্যালয়ের পটভূমি

     

    মাঠ প্রশাসন বা স্থানীয় প্রশাসনের গোড়ায় আছে বিভাগীয় প্রশাসন। সমগ্র বাংলাদেশকে বর্তমানে ৮টি প্রশাসনিক বিভাগে ভাগ করা হয়েছে। বিভাগগুলো হচ্ছে- ঢাকা, চট্রগাম, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, সিলেট, রংপুর ও  ময়মনসিংহ। ২০১৫ সালে ময়মনসিংহ বিভাগ প্রতিষ্ঠিত হয়। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানীর শাসনামলে বাংলার তৎকালীন গভর্ণর জেনারেল লর্ড উইলিয়াম বেন্টিং ১৮২৯ সালে  Commissioner’s Act এর মাধ্যমে রাজস্ব ব্যবস্থা নিশ্চিতকরণ ও শাসন ব্যবস্থাকে দৃঢীকরণের উদ্দ্যেশে বাংলার কয়েকটি জেলা নিয়ে একটি বিভাগের সৃষ্টি করেন। সে সময় বিভাগীয় প্রধানের পদবি হয় বিভাগীয় কমিশনার (Divisional Commissioner)। ৪ টি জেলা নিয়ে গঠিত  ময়মনসিংহ বাংলাদেশের অন্যতম বিভাগ। এ ৪ টি জেলার প্রশাসনিক কেন্দ্র  ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়। বিভাগীয় কমিশনারের দিকনির্দেশনা ও তত্ত্বাবধানে জেলা প্রশাসকগণ প্রশাসনিক কর্মকান্ড পরিচালনা করেন। বিভাগীয় কমিশনার বিভাগীয় আইন শৃংখলা কমিটির সভাপতি, বিভাগীয় উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভাপতি, বিভাগের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা, চোরাচালান প্রতিরোধ সংক্রান্ত আঞ্চলিক টস্কফোর্সের সভাপতি, বিভাগীয় বাছাই কমিটির সভাপতি, বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি।

     

     

     

    বিভাগীয় অফিসসমূহ

  • আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় (আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক)
  • ডিভিশনাল কন্ট্রোলার অব একাউন্টস্‌ (
  • শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর ( তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী)
  • প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর, বিভাগীয় কার্যালয় (উপ-পরিচালক)
  • উপ-ভূমি সংস্কার কমিশনারের কার্যালয় (উপ-ভূমি সংস্কার কমিশনার)
  • সহকারী হিসাব নিয়ন্ত্রক (রাজস্ব) এর কার্যালয় ((সহকারী হিসাব নিয়ন্ত্রক (রাজস্ব))
  • গ্রন্থাগার অধিদপ্তর, বিভাগীয় কার্যালয় (পরিচালক)
  • বিভাগীয় কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস (উপ-পরিচালক)
  • টিসিবি, আঞ্চলিক কার্যালয়
  • বিভাগীয় তথ্য অফিস
  • স্থাপত্য অধিদপ্তর
  • নগর উন্নয়ন অধিদপ্তর (উপ-পরিচালক)
  • দুদক, বিভাগীয় কার্যালয়  (পরিচালক)
  •  

    বিভাগীয় কমিশনারের প্রধান প্রধান কার্যাবলী/দায়িত্বসমূহ 

    রাষ্ট্রীয় গোপনীয় বিষয়াদি

  • মহামান্য রাষ্ট্রপতি এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা সংক্রান্ত কার্যাদি।
  • গোপনীয় তথ্য ও পুস্তকাদির নিরাপদ হেফাজত সম্পর্কিত প্রতিবেদন প্রেরণ।
  • KPI  এর নিরাপত্তা এর তদারকি।
  • বিভাগীয় সার্বিক অবস্থার পাক্ষিক গোপনীয় প্রতিবেদন সরকারের কাছে প্রেরণ।
  •  

    বিভাগীয় কমিশনারের প্রধান প্রধান কার্যাবলী/দায়িত্বসমূহ :

    বিভাগীয় কমিশনার বিভাগীয় প্রশাসনের মূল নিয়ন্ত্রক। কেন্দ্রীয় প্রশাসনের কার্যাবলী বিভাগীয় পর্যায়ের বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে বিভাগীয় কমিশনার  তত্ত্বাবধান করেন। তিনি জেলা প্রশাসকের কার্যক্রম মনিটর করার পাশাপাশি সরকার কর্তৃক অর্পিত সকল দায়িত্ব পালন করেন।

  • প্রশাসনিক কার্যক্রম তদারকিঃ বিভাগীয় পর্যায়ের বিভিন্ন বিভাগ ও দপ্তরের কার্যাবলী সমন্বয় এবং বিভাগাধীন জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সহকারী কমিশনার (ভূমি)সহ প্রশাসনে কর্মরত কর্মকর্তা এবং কর্মচারীদের কার্যক্রম তদারকি
  • উন্নয়ন সংক্রান্তঃ বিভাগের কল্যাণ ও উন্নয়নমূলক কাজের সমন্বয়। প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় ত্রাণ, পূনর্বাসন কাজ তদারক ও সমন্বয় সাধন
  • বদলি, পদায়ন সংক্রান্তঃ সহকারী কমিশনার, সহকারী কমিশনার (ভুমি), উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের বদলি এবং পদায়ন। তাছাড়া, ভুমি অফিসে কর্মরত ভুমি উপসহকারী ভূমি কর্মকর্তা, কানুনগো, সার্ভেয়ারদের বিভাগাধীন আন্তঃজেলা বদলি

  • রাজস্ব সংক্রান্তঃ বিভাগের ভূমি রাজস্ব আদায় সংক্রান্ত কার্যাবলী পরিচালনা ও নিয়ন্ত্রন এবং রাজস্ব বিষয়ে জেলা প্রশাসকদের আদেশের বিরুদ্ধে তিনি আপিল শুনানী
  • বিভাগীয় নির্বাচনী বোর্ড সংক্রান্তঃ বিভাগীয় নির্বাচনী বোর্ডের সভাপতি হিসেবে নিজ কার্যালয়, ডিআইজি’র কার্যালয়, পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়, বিভাগাধীন জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে তৃতীয়  এবং ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারী নিয়োগ প্রক্রিয়া পরিচালনা
  • মাসিক/অন্যান্য সভা সংক্রান্তঃ বিভাগীয় কমিশনারের সভাপতিত্বে জেলা প্রশাসকগণের সাথে মাসিক সমন্বয় সভা, বিভাগীয় পর্যায়ে টাস্কফোর্স সভা, বিভাগীয় আইন শৃঙ্খলা সভা, বিভাগীয় রাজস্ব সম্মেলন, বিভাগীয় উন্নয়ন সমন্বয় সভা, বিভাগীয় কোর কমিটির সভা এবং জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহীগণের সাথে ত্রৈমাসিক সভা
  • গোপনীয় অনুবেদন সংক্রান্তঃ অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার, পরিচালক, স্থানীয় সরকার এবং জেলা প্রশাসকগণের গোপনীয় অনুবেদন প্রদান। বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ে কর্মরত সহকারী/সিনিয়র কমিশনার এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও অতিরিক্ত  জেলা প্রশাসকগণের গোপনীয় অনুবেদন প্রতিস্বাক্ষর
  • অন্যান্য দায়িত্বাবলীঃ
  • প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার প্রকল্প সমূহের বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা এবং প্রতিবেদন প্রেরণ।
  • বিভিন্ন মন্ত্রণালয়/বিভাগ আয়োজিত মাসিক সমন্বয়/পর্যালোচনা সভায় যোগদান ।
  • বিভাগীয় পর্যায়ে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বিচারাধীন মামলার স্বাক্ষী হাজিরা ও প্রশাসনিক সহায়তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে গঠিত বিভাগীয় মনিটরিং কমিটিতে সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন।
  • জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস উদযাপনের ব্যাপারে সরকার কর্তৃক গৃহীত সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন
  • অডিট আপত্তি নিষ্পত্তির লক্ষ্যে ত্রিপক্ষীয় সভা অনুষ্ঠান
  • পাবলিক প্রকিউরম্যান্ট রেগুলেশন-২০১৩ অনুযায়ী বিভাগীয় দরপত্র মূল্যায়ন কমিটিতে বিভাগীয় কমিশনারের প্রতিনিধির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন
  • অভ্যন্তরীন খাদ্য শস্য সংগ্রহ সংক্রান্ত বিভগীয় কমিটিতে সভাপতির দায়িত্ব পালন
  • প্রাথমিক শিক্ষা পদক নীতিমালা অনুসারে বিভাগীয় বাছাই কমিটিতে সভাপতির দায়িত্ব পালন
  • জতীয় পরিবেশ পদক নীতিমালা অনুযায়ী বিভাগীয় পদক মূল্যায়ন কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন
  •  

    বিভাগীয় কমিশনারের গৃহীত বিশেষ উদ্যোগসমূহ

  • জনবান্ধব উপজেলা প্রশাসন বিনির্মাণে ৩৮টি বিশেষ উদ্যোগ
  • জনবান্ধব ভূমি অফিস নির্মাণে ২৪টি বিশেষ উদ্যোগ
  • ভিক্ষুক পুনর্বাসন ও ভিক্ষুক মুক্তকরণের লক্ষ্যে বিভাগের সকল জেলা ও উপজেলায় “ভিক্ষুক পুনর্বাসন তহবিল” গঠন এবং সকল দপ্তরের কর্মকর্তা/কর্মচারীদের এক দিনের বেতনের সমপরিমাণ টাকা উক্ত তহবিলে জমার উদ্যোগ গ্রহণ
  • বাল্যবিবাহ মুক্তকরণের লক্ষ্যে বিভিন্ন উদ্যোগ
  • শত ভাগ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে টিফিন বক্স বিতরণ/মিড ডে মিল চালুকরণ

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter